40463

সুস্থ হয়ে উঠেছেন পূজা সালমানের সহযোগিতায়

বিনোদন ডেস্ক।। চলতি বছরের মার্চ মাসে ‘বীরগতি’ অভিনেত্রী পূজা দাদওয়ালের অসুস্থতার খবর প্রকাশ্যে আসে। সেসময় জানা যায়, মুম্বাইয়ে সেউরি টিবি হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন পূজা। অথচ, চিকিৎসা করানোর মতো টাকা তার কাছে নেই বলে জানা যায়। সেই সময় তিনি জানান, চিকিৎসার জন্য সালমানের সঙ্গে যোগাযোগ করতে চাইলেও তিনি যোগাযোগ করতে পারছেন না। খবর পৌঁছাতে সালমানের উদ্দেশ্যে একটি ভিডিও করেছিলেন এক সময়ের সালমানের সহ-অভিনেত্রী পূজা। খবরটি সালমানের কানে যেতেই তিনি পূজার চিকিৎসার জন্য টাকা পাঠিয়ে দেন। পূজার পাশে দাঁড়ান ভোজপুরী অভিনেতা রবি কিষণ। সকলের সাহায্যে অবশেষে সুস্থ হয়ে উঠেছেন পূজা।

মুম্বাই মিরর সূত্রে খবর, মঙ্গলবারই তাকে হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। পূজকে এবিষয়ে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেন, ‘আমি ভাষায় প্রকাশ করতে পারব না আমার কেমন লাগছে। গত মার্চ মাসের ২ তারিখ আমি যখন হাসপাতালে ভর্তি হলাম, তখন আমি ভেবেছিলাম আমি আর বাঁচবো না। হাসপাতালের বিছানায় শুয়ে শুয়ে ক্রমাগত মানসিকভাবে ভেঙে পড়ছিলাম। আমার পরিবার ও বন্ধুরা সকলেই আমায় ছেড়ে চলেগিয়েছিল। আমার শ্বাসযন্ত্র ক্রমাগত বিকল হয়ে পড়েছিল। চিকিৎসকরাও আশা ছেড়ে দিয়েছিল। হাসপাতালের বিছানায় শুয়ে শুয়ে আমি দেখছিলাম যে অনেকেই আমার মতো একা, অনেককেই এভাবে তার আত্মীয়, কাছের মানুষরা ছেড়ে চলে গেছে। তারপরই আমি ভাবলাম এভাবে সব শেষ হয়ে যেতে পারে না, আমি লড়ব।’
প্রসঙ্গত, পূজার অসুস্থতার খবর পাওয়া মাত্রই তার স্বামী তাকে ছেড়ে চলে যান।
সালমান প্রসঙ্গে পূজা বলেন, ‘আমি সত্যিই কৃতজ্ঞ। ও যেভাবে আমার পাশে দঁড়িয়েছে, আমাকে সাহায্য করেছে আমি তা ভুলব না। আমার পোশাক, ওষুধ, খাবার সবকিছুরই ব্যবস্থা ও করে দিয়েছে। সালমানের বিশেষ স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন থেকে সবসসময় টাকা পাঠানো হয়েছে। আমি বেঁচে আছি, শুধুমাত্র ওর জন্যই।’

উল্লেখ্য, পূজাকে সালমানের ‘বীরগতি’ সিনেমায় অতুল অগ্নিহোত্রী নায়িকা হিসাবে দেখা গিয়েছিল। যে অতুল অগ্নিহোত্রী বর্তমানে সালমানের ভগ্নীপতি।
তবে শুধু সালমানই নন পূজার পাশে দাঁড়িয়েছিলেন ভোজপুরী অভিনেতা রবি কিষণ। তিনিও পূজার অসুস্থতার খবর পাওয়া মাত্রই হাসপাতালে ছুটে গিয়েছিলেন, তার জন্য ওষুধ, ফল কিনে নিয়ে গেছিলেন। এদিকে হাসপাতাল সূত্রে খবর, পূজাকে হাসপাতাল থেকে ছাড়া হলেও আরও একমাস তাকে ওষুধ চালিয়ে যেতে হবে। সূত্র : জি নিউজ

ad

পাঠকের মতামত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *