41593

নওশীনের কারণে মিলার সংসারে অশান্তি, বিচ্ছেদ

বিনোদন প্রতিবেদন
২০১৭ সালের মে মাসে পারিবারিকভাবে বৈমানিক পারভেজ সানজারির সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন মিলা। বিয়ের পর গানে হয়ে পড়েন অনিয়মিত। জড়িয়ে যান সংসার জীবনের দ্বন্দ্ব-বিবাদে। নারী নির্যাতন-যৌতুকের অভিযোগে স্বামী সানজারির বিরুদ্ধে মামলাও করেন তিনি। সবশেষ সংসার জীবনের ইতি টানেন পপ গানের এই শিল্পী।

বৈমানিক পারভেজ সানজারির সঙ্গে এই ডিভোর্সের পেছনে অভিনেত্রী নওশীন অন্যতম কারণ ছিল বলে অভিযোগ করেছেন মিলা। সম্প্রতি রাজধানীর বেইলি রোডের একটি রেস্তোরাঁয় সংবাদকর্মীদের সামনে সাবেক স্বামী বৈমানিক পারভেজ সানজারি ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ তুলে ধরেন মিলা। একপর্যায়ে নওশীন ও পারভেজ সানজারির মধ্যে সম্পর্ক রয়েছে বলে দাবি করেন তিনি।

তবে নওশীন এর তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘মিলা আমাকে ভুল বুঝছেন। আমাকে নিয়ে যা অভিযোগ হচ্ছে তা পুরোটাই ভিত্তিহীন, ভুল ও বানোয়াট। আমি এমন ভুল, ভিত্তিহীন অভিযোগের নিন্দা জানাচ্ছি।’ তিনি আরও বলেন, ‘আমি যদি মিলার সংসার ভাঙতে চাইতাম, তাহলে আগে আমার সংসার ভাঙতে হবে। হিল্লোল আর আমি একসঙ্গে আছি, সুখে আছি, শান্তিতে আছি। আমি মিডিয়ার মেয়ে হয়ে শোবিজের আরেকটি মেয়ের সংসার কীভাবে ভাঙবো?’

মিলার অভিযোগ, ‘আমার স্বামীর সঙ্গে নওশীনের ঘনিষ্ঠ ছবি হাতে পেয়ে হিল্লোলকে জানানোর পরও কোনও সুরাহা হয়নি। উল্টো সাইবার ক্রাইমে আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ করে তারা।’ কিন্তু নওশীন বললেন, ‘আমি মিলার নামে সাইবার ক্রাইমে কোনও কিছু করিনি। তাকে অনেকবার বোঝানোর চেষ্টা করেছি। হিল্লোলও বোঝানোর চেষ্টা করেছে। কিন্তু আমরা ব্যর্থ হয়েছি। সে ভুল বুঝছে সেটা বোঝানোর ক্ষমতা আমাদের নেই। জানি তার ব্যক্তিজীবনে দুঃসময় চলছে। একটা মেয়ে এমনিই বিপদে আছে, আমার মামলার কারণে সে আরও বিপদে পড়বে ভেবে মামলা করিনি।’

সংবাদ সম্মেলনে নওশীনের সঙ্গে গত জুনে মোবাইল ফোনে বিবাদের একটি রেকর্ড শোনান মিলা। তখনও ডিভোর্স হয়নি বলে জানান তিনি। রেকর্ডে শোনা যায়, বৈমানিক পারভেজ সানজারির সঙ্গে পরিচয় থাকার কথা স্বীকার করেছেন নওশীন। এছাড়া শোনা গেছে, পারভেজ সানজারির সঙ্গে অন্তরঙ্গ অবস্থায় ছবি তোলা নিয়ে নওশীনকে প্রশ্নবিদ্ধ করেন মিলা। কিন্তু নওশীনের দাবি, ‘মিলা সংবাদকর্মীদের যে ফোন রেকর্ড শুনিয়েছে সেটা ফেক। ওটা আমার কণ্ঠ না।’

নওশীনও আশাবাদী মিলা সুবিচার পাবেন। তিনি বলেছেন, ‘আমি চাই মিলা স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসুক। গান-বাজনা করুক। একইসঙ্গে অবশ্যই সে সুবিচার পাবে আশা করছি। আমার পরিচিত শিল্পী হিসেবে তার ভালো হোক আমি চাই।’

ad

পাঠকের মতামত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *