42888

মিসেস বাংলাদেশের গালা রাউন্ড ২১ সেপ্টেম্বর

বিনোদন প্রতিবেদক ||  প্রথমবারের মতো বাংলাদেশে হতে যাচ্ছে ‘মিসেস বাংলাদেশ’ বিউটি পিজেন্ট ও ট্যালেন্ট হান্ট রিয়েলিটি শো। আগামী ২১ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় গুলশান ক্লাবে এর গালা রাউন্ড (চূড়ান্ত নির্বাচন) অনুষ্ঠিত হবে। চূড়ান্ত বিজয়ী যুক্তরাষ্ট্রের লাসভেগাসে ‘মিসেস ওয়ার্ল্ড’ প্রতিযোগিতায় অংশ নেবেন।

বৃহস্পতিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) বিকেলে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর-রুনি মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান ‘মিসেস বাংলাদেশ’র চেয়ারম্যান অপূর্ব আবদুল লতিফ।

তিনি বলেন, সারাদেশ থেকে দুই সহস্রাধিক বিবাহিত প্রতিযোগীর অংশগ্রহণে শুরু হয় এই অনুষ্ঠান। প্রাথমিক নির্বাচন ও পর্যায়ক্রমে বিভিন্ন রাউন্ডের অডিশন, গ্রুমিং ও মোটিভেশনাল সেশনের মাধ্যমে নির্বাচন করা হয় ‘সেরা দশ’। এসব সেশনে বিচারক ও মেন্টর হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অভিনেতা-পরিচালক শহীদুল আলম সাচ্চু, সামিনা সারা, মারিয়া মৃত্তিক, ড. তৌহিদা রহমান ইরিন, বিউটি এক্সপার্ট সালেহা সারোয়ার, আবৃত্তি শিল্পী শিমুল মোস্তফা, গ্রুমিং ইন্সট্রাক্টর কৃষাণ ভূইয়া, ফ্যাশন ডিজাইনার আজহারুল হক আজাদ, মডেল-অভিনেতা খালেদা হোসেন সুজন, ফ্যাশন ডিজাইনার পিয়াল হোসেন, উপস্থাপিকা ইসরাত পায়েল, ফ্যাশন ডিজাইনার ও নারী উদ্যোক্তা নিমা এহসান, ইউথ বাংলা কালচারাল ফোরামের সভানেত্রী মুনা চৌধুরী, নৃত্য পরিচালক এমডি ফারুক, নারী উদ্যোক্তা আইরিন ইসলাম, অভিনেতা ও উপস্থাপক জুলহাজ জোবায়ের, মডেল কোরিওগ্রাফার লামিয়া আলম, অভিনেতা অন্তু করিম প্রমুখ।

অপূর্ব আব্দুল লতিফ বলেন, বাংলাদেশে সৌন্দর্য ও মেধাভিত্তিক জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক অসংখ্য অনুষ্ঠান আগেও হয়েছে। কিন্তু, মেধাবী ও বিবাহিত নারীদের নিয়ে উল্লেখযোগ্য তেমন কিছু হয়নি। সেই তাগিদেই এমন একটা পরিকল্পনা নেওয়া হয়। নারীশক্তি ও নারী জাগরণকে একধাপ এগিয়ে দেওয়ার লক্ষ্যেই এ আয়োজন।

অনুষ্ঠানের ইভেন্ট ডিরেক্টর ও গ্রুমিং ইন্সট্রাক্টর কৃষাণ ভূইয়া বলেন, অনুষ্ঠানটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ব্যাপক প্রচারণা ও সাধারণ মানুষের মধ্যে কল্পনাতীত সাড়া ফেলেছে। এ কারণে আমরা অনেক বেশি অনুপ্রাণিত।

টাইটেল স্পন্সর বায়োজিন কসমেসিউটিক্যালের সিআইও জাহিদুল হক বলেন, অংশগ্রহণকারী সব নারী ও তাদের পরিবারকে সাধুবাদ জানাই। বাংলাদেশে বিবাহিত নারীদের নিয়ে এই প্রথম এ ধরনের আয়োজন। আধুনিক বাংলাদেশ গঠনে মিসেস বাংলাদেশ উদ্যোগটি যথেষ্ট ভূমিকা রাখবে বলে আমার বিশ্বাস।

ইউথ বাংলা সভাপতি মোনা চৌধুরী বলেন, প্রতিবছরই এ ধরনের আয়োজন হওয়া উচিত। এটি বিবাহিত নারীদের আত্মবিশ্বাসী হতে সাহায্য করবে।

সংবাদ সম্মেলনে আয়োজনে অংশগ্রহণকারী কয়েকজন নারী অনুষ্ঠান বিষয়ে তাদের অভিজ্ঞতা জানান।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন রেডিও পার্টনার ক্যাপিটাল এফএম’র প্রোগ্রাম ইনচার্জ নাফিজ রেদওয়ান শান্ত।

ad

পাঠকের মতামত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *