43462

ভিসা না পেলে কপাল পুড়বে ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ তোরসার

৩৭ হাজারেরও বেশি প্রতিযোগী নিবন্ধন করেছিলেন মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ হওয়ার স্বপ্ন নিয়ে। সেখান থেকে সেরা ১২ জন বাছাই করা হয়। তাদের নিয়েই গত শুক্রবার রাতে অনুষ্ঠিত হয় ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ ২০১৯’-এর গ্র্যান্ড ফিনালে। সৌন্দর্য, শিক্ষা, স্মার্টনেস, উপস্থাপনা, পারফর্মেন্সে এই ১২ জনই ছিলেন অনন্যা। তবু ১১ অক্টোবর রাতের একটি মুহূর্ত পার্থক্য গড়ে দেয় তাদের মাঝে। মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ নির্বাচিত হন রাফাহ নানজিবা তোরসা।

১৪ অক্টোবর, সোমবার দুপুরে এক প্রেস কনফারেন্সে মিস ওয়ার্ল্ড হওয়ার অভিজ্ঞতা জানান তোরসা। আয়োজকরাও জানান তাদের অভিজ্ঞতা। তোরসা বলেন, ‘অনুভূতি সত্যিই অন্যরকম। অনুভূতি প্রকাশের যথাযথ ভাষা আমার কাছে নেই। আমি আত্মবিশ্বাসী ছিলাম। আমার শ্রম বৃথা যায়নি। আমি সত্যিই আবেগাপ্লুত।’

মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ হয়ে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে দেশের প্রতিনিধিত্ব করবেন তোরসা। প্রত্যাশা এখন আকাশ ছোঁয়ার। সেই লক্ষ্যে নিজেকে তৈরি করছেন তিনি। নানা রকম গ্রুমিংয়ে সৌন্দর্য ও বুদ্ধিকে কীভাবে নিজেকে স্মার্টলি উপস্থাপন করতে হয় শিখেছেন।

তোরসা বলেন, ‘আমার এখন একটা মাত্রই লক্ষ্য। মিস ওয়ার্ল্ডের আসরে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করা। বাংলাদেশকে ভালোভাবে উপস্থাপন করা। সে জন্য আমি নিজেকে তৈরি করে নিচ্ছি। যত রকমের গ্রুমিং করা প্রয়োজন সবই করব।’

এদিকে তোরসা যখন নিজেকে গুছিয়ে নিচ্ছেন তখন আভাস পাওয়া যাচ্ছে নতুন বিতর্কের। আগের দুবার প্রতিযোগীদের নিয়ে বিতর্ক হলেও এবার আয়োজকদের নিয়ে বিতর্ক হচ্ছে। আর তা হচ্ছে বিকল্প প্রতিযোগী তত্ত্ব। নিয়ম অনুযায়ী ৬৯তম মিস ওয়ার্ল্ড প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়ার কথা তোরসার। কিন্তু তার এ যাওয়া নির্ভর করছে ভিসা প্রাপ্তির ওপর। তোরসা ভিসা না পেলে বিকল্প হিসেবে সেখানে যাবেন প্রতিযোগিতায় সর্বাধিক ভোট পাওয়া ও ‘ফেস অব বিউটি’ খেতাব প্রাপ্ত নওশীন মিম।

সোমবার অনুষ্ঠিত ওই সংবাদ সম্মেলনেই এ তথ্য জানালেন আয়োজকেরা। আয়োজক প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান মেহেদি হাসান বলেন, আমাদের বিজয়ী তোরসা। আমরা এখন পর্যন্ত তাকেই লন্ডন পাঠানোর জন্য ঠিক করে রেখেছি। কিন্তু কোনো কারণে তোরসা ভিসা না হলে স্ট্যান্ড বাই হিসেবে মিমকে রেখেছি। এর আগে আমরা ‘মিস্টার ওয়ার্ল্ড’ প্রতিযোগীতায়ও এ রকম স্ট্যান্ড বাই রেখেছিলাম। কারণ ইউরোপিয়ান দেশগুলোর ভিসা আইন বেশ জটিল হওয়ায় আমরা উদ্বিগ্ন। তাই বিকল্প ভেবে রেখেছি। দুজনেরই ভিসা কার্যক্রম চলছে।’

বিষয়টি নতুন বিতর্কের সৃষ্টি করবে কিনা এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ‘আমরা আশা করছি তোরসাই ভিসা পাবেন। তাই মনে হয় না কোন বিতর্ক সৃষ্টি হবে।’

প্রসঙ্গত, এর আগে ২০১৭ সালে ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ হিসেবে ঘোষণা করা হয় জান্নাতুন নাঈম এভ্রিলকে। পরবর্তীতে তিনি বিবাহিত এ অভিযোগ উঠলে তাকে বাদ দিয়ে জেসিয়া ইসলামকে বিজয়ী ঘোষণা করা হয়।

ad

পাঠকের মতামত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *