43521

আইয়ুব বাচ্চুকে শ্রদ্ধা জানিয়ে জন্মদিন পালন করছেন না তাহসান

বিনোদন প্রতিবেদকঃ আজ গিটারের জাদুকর আইয়ুব বাচ্চুর চলে যাওয়ার প্রথম বছর। ২০১৮ সালের ১৮ অক্টোবর না ফেরার দেশে পাড়ি জমিয়ে ছিলেন তিনি। এদিকে এই দিনটিতেই জন্ম নিয়ে ছিলেন সংগীতে আরেক জনপ্রিয় তারকা তাহসান।

গত বছর এই দিনে তাহসান যখন নিজের জন্মদিন পালনের সব প্রস্তুতি সেরে নিচ্ছিলেন, ঠিক তখনই আইয়ুব বাচ্চুর মৃত্যুর খবরটি শোনেন তিনি। এরপর থেকেই জন্মদিনটা আর জন্মদিন নেই তাহসানের। এই দিনটা আর সবার মতই তার কাছেও শোকের।

তাই এই বছরও জন্মদিন পালন করছেন না তাহসান খান। তিনি বলেন, ‘এই দিনেই আইয়ুব বাচ্চু ভাই আমাদের ছেড়ে চলে গেছেন। জন্মদিন সেলিব্রেট করিনি। এ বছরও জন্মদিন সেলিব্রেট করছিনা।’

গত বছর নিজের জন্মদিন উপলক্ষে একটি কবিতা লিখেছিলেন তাহসান। সেটা আর প্রকাশ করা হয়নি। গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে এক বছর পর সেই অপ্রকাশিত কবিতাটিই আবৃত্তি করে শোনালেন তাহসান।

তার আগে ভিডিওবার্তায় তাহসান বলেন, ‘গত বছর ১৭ অক্টোবর ফেসবুকে আমার ভক্তদের উদ্দেশে একটি পোস্ট করেছিলাম। যেখানে লিখেছিলাম ভক্তদের কাছে আমি জোর করে একটা উপহার চাই। আর কী উপহার চাই, সেটি একটি কবিতা লিখে জানাব। কিন্তু পর দিন বাচ্চু ভাই আমাদের ছেড়ে চলে যান। এর পর আর আমার মন-মানসিকতা ছিল না কবিতাটি পোস্ট করার। আজ আবার কবিতাটি সামনে এলো তাই সবাইকে পড়ে শোনাচ্ছি।’

আইয়ুব বাচ্চুকে নিয়ে স্মৃচিচারণ করে তাহসান বলেন, ‘প্রথম যুক্তরাষ্ট্রে যখন অ্যাওয়ার্ড নিতে যাই ২০০৬ সালে। ওই সময় বাচ্চু ভাইও সঙ্গে ছিলেন। ওখান থেকে আমি একটা গিটার কিনতে চাইলাম। বাচ্চু ভাই আমার গিটারটা পছন্দ করে দিয়েছিলেন। এখনো গিটারটা আছে। যখনই গিটারটা দেখি বাচ্চু ভাইয়ের কথা মনে পড়ে। আজকের দিনের আমার প্রার্থনা বাচ্চু ভাই যেখানেই যেনো ভালো থাকেন।’

তাহসান জানালেন, মেয়ে ও বাবা মায়ের সঙ্গে তার আজকের দিনটি কাটবে। তাহসানের পুরোনাম তাহসান রহমান খান। তিনি একাধারে জনপ্রিয় সঙ্গীতশিল্পী, সুরকার ও সঙ্গীত পরিচালক, উপস্থাপক ও অভিনেতা। তবে পেশায় একজন শিক্ষক।

তার পৈতৃক নিবাস মুন্সিগঞ্জের বিক্রমপুর। তাহসান পড়াশোনা করেছেন এ জি চার্চ স্কুলে ও সেন্ট জোসেফ উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে। ১৯৯৮ সালে নটর ডেম কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করেছেন। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসায় প্রশাসন ইনস্টিটিউট থেকে ব্যবসায় প্রশাসনে ব্যাচেলর (মার্কেটিং) ও মাস্টার (ফাইন্যান্স) ডিগ্রি লাভ করেন।

২০০৬ সালের ৩ আগস্ট তাহসান ভালোবেসে বিয়ে করেন মডেল ও অভিনেত্রী মিথিলাকে। এরপর ২০১৩ সালের ৩০ এপ্রিল এই তারকা দম্পতির ঘর আলো করে জন্ম নেয় কন্যাসন্তান আইরা তাহরিম খান। তাহসান-মিথিলাকে শোবিজের সবচেয়ে সুখী দম্পতি বলা হত। কিন্তু ২০১৭ সালে সবাইকে অবাক করে ১১ বছরের সংসার জীবনের ইতি টানেন তারা।

তাহসানের জনপ্রিয় গানের তালিকা অনেক লম্বা। এরমধ্যে উল্লেখযোগ্য কয়েকটি গান হচ্ছে- ‘প্রতিজ্ঞা’, ‘রোদেলা দুপুর’, ‘রোদের আচর’, ‘কাল্পনিক প্রেম’, ‘অগোচরে’, ‘মেঘের পরে’, ‘প্রথম প্রেম’, ‘কেন হঠাৎ এলে’, ‘তুমি ছুঁয়ে দিলে মন’, ‘প্রথম ভালোবেসে’, ‘কেউ না জানুক’ প্রভৃতি।

গানের মতো অভিনয়ের জন্যও ব্যাপক জনপ্রিয় তাহসান। তার অভিনীত নাটকের মধ্য রয়েছে- ‘মনফড়িং এর গল্প’, ‘নীল পরী নীলাঞ্জনা’, ‘স্পর্শের বাইরে তুমি’, ‘চিনিগুঁড়া প্রেম’, ‘হঠাৎ তোমার জন্য’, ‘অনামিকা’, ‘মিস্টার অ্যান্ড মিসেস’ প্রভৃতি।

চলতি বছর ‘যদি একদিন’ সিনেমার মাধ্যমে বড় পর্দায় তার অভিষেক ঘটে। এতে তাহসানের বিপরীতে অভিনয় করেন কলকাতার অভিনেত্রী শ্রাবন্তী। শিগগিরই আরেকটা নতুন সিনেমার ঘোষণা আসবে বলে জানালেন এই গায়ক।

ad

পাঠকের মতামত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *